ঢাকা,  মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ,

মাওলানা সা’দকে অনুমতির দাবি

বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব শুরু শুক্রবার

বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব শুরু শুক্রবার

ফাইল ছবি

টঙ্গীর তুরাগ তীরে কাল শুক্রবার বাদ ফজর আ’মবয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হবে মাওলানা সা’দ আহমদ কান্ধলভি অনুসারীদের দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমা। প্রায় সব প্রস্তুতি শেষের পথে। সময় স্বল্পতার কারণে স্বেচ্ছাসেবী বিভিন্ন নজমের সাথীরা মঙ্গলবার ময়দান হস্তান্তরের পর থেকেই সকাল-সন্ধ্যা অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। তিন দিনের ইজতেমা ঘিরে টঙ্গী ও আশপাশের এলাকায় ধর্মীয় উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে।

এদিকে বুধবার মাওলানা সা’দকে ইজতেমায় আসার অনুমতির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে তার অনুসারী বাংলাদেশ মুসল্লি পরিষদ। সন্ধ্যায় দিল্লির নিজামুদ্দিন মারকাজ থেকে সা’দের তিন ছেলেসহ ১৪ জনের একটি জামাত ইজতেমায় এসেছে।

বুধবার দুপুরে সরেজমিন দেখা গেছে, ইজতেমা ময়দানের সব প্রস্তুতি প্রায় শেষের পথে। প্রথমপর্বের মুসল্লিদের ফেলে যাওয়া ময়লা-আবর্জনা ইতোমধ্যে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হয়েছে। ময়দানের পশ্চিম পাশে তুরাগ নদের পূর্বপাড়ে নামাজের মিম্বর ও উত্তর-পশ্চিম কোণে বিদেশি মেহমানদের জন্য নির্ধারিত কামরার পাশে বয়ানমঞ্চ নির্মাণ করা হয়েছে। এছাড়াও শামিয়ানা টানানো, বিদ্যুৎ ও মাইক সংযোগের জন্য তার টানানোসহ তাশকিল কামরা, জুড়নেওয়ালি জামাতের কামরা, তুরাগ নদের পশ্চিমপাড়ে বধিরদের বয়ান শোনার জন্য পৃথক কামরা তৈরি করা হয়েছে।

বুধবার থেকেই দেশি ও বিদেশি মেহমানরা আসতে শুরু করেছেন। আজকের মধ্যেই দেশ-বিদেশের লাখ লাখ মুসল্লি ময়দানে এসে তাদের জন্য নির্ধারিত খিত্তায় অবস্থান নেবেন বলে জানিয়েছেন দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমা আয়োজক কমিটির শীর্ষ মুরুব্বি প্রকৌশলী শাহ মোহাম্মদ মুহিবুল্লাহ।

এদিকে প্রথম পর্বের মতো দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমাও ভালোভাবে পরিচালিত হবে বলে গাজীপুর জেলা প্রশাসক, সিটি করপোরেশনের মেয়র, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, ফায়ার সার্ভিস, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী র‌্যাব, পুলিশ, সিটিএসবি, ডিএসবিসহ বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা নিশ্চিত করেন। এদিকে ইজতেমা চলাকালে ট্রাফিক ও যাতায়াত ব্যবস্থা আগের মতোই বলবৎ থাকবে বলে জানা গেছে।

দ্বিতীয় পর্বে খিত্তাওয়ারি মুসল্লিদের অবস্থান : মিরপুর খিত্তা-১, ২, সাভার-৩ ও ৪, টঙ্গী-৫, উত্তরা-৬, উত্তরখান ও দক্ষিণখান-৭, মহাখালী-বাড্ডা-৮, তেজগাঁও-রামপুরা-৯, বনশ্রী, বাসাবো, মুগদা-১০, পল্টন, গুলিস্তান, কাকরাইল-১১, গেণ্ডারিয়া, সূত্রাপুর-১২, লালবাগ-১৩, বুয়েট, মেডিকেল, ধানমন্ডি-১৪, মোহাম্মদপুর-১৫, যাত্রাবাড়ী-১৬, ডেমরা-১৭, মিকাইল-১৮, কেরানীগঞ্জ-১৯, ধামরাই-২০, নবাবগঞ্জ-২১, দোহার-২২, রাজবাড়ী-২৩, গোপালগঞ্জ-২৪, ফরিদপুর-২৫, মাদারীপুর-২৬, শরীয়তপুর-২৭, নরসিংদী-২৮, কিশোরগঞ্জ-২৯, নারায়ণগঞ্জ-৩০, মানিকগঞ্জ-৩১, টাঙ্গাইল-৩২, মুন্সীগঞ্জ-৩৩, গাজীপুর-৩৪, দিনাজপুর-৩৫, নাটোর-৩৬, মৌলভীবাজার-৩৭, জয়পুরহাট-৩৮, নওগাঁ-৩৯, সিরাজগঞ্জ-৪০, খুলনা-৪১, সিলেট-৪২, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৪৩, রাজশাহী-৪৪, বি. বাড়িয়া-৪৫, চাঁদপুর-৪৬, কুমিল্লা-৪৭, খাগড়াছড়ি-৪৮, নেত্রকোনা-৪৯, ময়মনসিংহ-৫০, জামালপুর-৫১, সুনামগঞ্জ-৫২, হবিগঞ্জ-৫৩, শেরপুর-৫৪, কক্সবাজার-৫৫, রাঙামাটি-৫৬, বান্দরবান-৫৭, চট্টগ্রাম-৫৮, নোয়াখালী-৫৯, ফেনী-৬০, লক্ষ্মীপুর-৬১, পিরোজপুর-৬২, বরগুনা-৬৩, ঝালকাঠি-৬৪, পটুয়াখালী-৬৫, ভোলা-৬৬, বরিশাল-৬৭, কুষ্টিয়া-৬৮, চুয়াডাঙ্গা-৬৯, বাগেরহাট-৭০, নড়াইল-৭১, বগুড়া-৭২, যশোর-৭৩, মাগুরা-৭৪, ঝিনাইদহ-৭৫, সাতক্ষীড়া-৭৬, মেহেরপুর-৭৭, নীলফামারী-৭৮, পাবনা-৭৯, রংপুর-৮০, লালমনিরহাট-৮১, ঠাকুরগাঁও-৮২, গাইবান্ধা-৮৩, পঞ্চগড়-৮৪ ও কুড়িগ্রাম-৮৫। এছাড়া ৮৬, ৮৭, ৮৮ ও ৮৯নং খিত্তাগুলো সংরক্ষিত রাখা হয়েছে। তুরাগ নদের পশ্চিম পাড়ে ১০টি অতিরিক্ত খিত্তা করা হয়েছে।

মাওলানা সা’দকে ইজতেমায় আসার অনুমতির দাবি : এদিকে মাওলানা সা’দকে ইজতেমায় আসার অনুমতির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে বাংলাদেশ মুসল্লি পরিষদ। এজন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতি জোরালো আহ্বান জানিয়েছেন তারা। অন্যথায় ক্ষুব্ধ মুসল্লিরা কোনো প্রকার ভয়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি করলে তার দায়ভার সরকারকে নিতে হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন তারা। বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে বিদেশি মেহমানদের প্রবেশ গেটের (প্রধান গেট) সামনে এই সংবাদ সম্মেলন হয়। এতে বক্তব্য দেন বাংলাদেশ মুসল্লি পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক মাওলানা মুফতি মুয়াজ বিন নূর। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন মুফতি আজিম উদ্দিন, মুফতি মিজানুর রহমান, মুফতি আরিফ  হোসেন, মাওলানা আনাস, সৈয়দ মাসুম, আতাউর রহমান, আতাউল্লাহ প্রমুখ।