ঢাকা,  সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ,

পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স নবায়ন এখন অনলাইনে

পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স নবায়ন এখন অনলাইনে

ফাইল ছবি

পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স নবায়ন প্রক্রিয়া সহজ করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ)। তার অংশ হিসেবে আগামীকাল ১২ ফেব্রুয়ারি থেকে বিআরটিএর সব সার্কেলে ড্রাইভিং লাইসেন্স নবায়নের আবেদন অনলাইনে দাখিল করতে পারবেন। ফলে মাত্র একদিন শুধুমাত্র বিআরটিএর পরীক্ষা কেন্দ্রে যেতে হবে আবেদনকারীকে।


সম্প্রতি বিআরটিএর ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স নবায়ন প্রক্রিয়া সহজ করার জন্য ঢাকা মেট্রো সার্কেল-১ (মিরপুর), ঢাকা মেট্রো সার্কেল-২ (ইকুরিয়া), ঢাকা মেট্রো সার্কেল-৩ (দিয়াবাড়ি, উত্তরা), ঢাকা মেট্রো সার্কেল-৪ (পূর্বাচল) ও ঢাকা জেলা সার্কেলের অন্তর্ভুক্ত আবেদনগুলো অনলাইনে দাখিল করার ব্যবস্থা ইতোমধ্যে বিআরটিএ সার্ভিস পোর্টালের মাধ্যমে গ্রহণ কার্যক্রম (পাইলটিং) শুরু করা হয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে আগামী ১২ ফেব্রুয়ারি থেকে এ প্রক্রিয়াই বিআরটিএর অন্যান্য সব সার্কেলের অন্তর্ভুক্ত পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স নবায়নের কার্যক্রম চালু করা হবে।


এ অনলাইন আবেদন প্রক্রিয়া চালুর ফলে পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্সধারীকে শুধু একবার বিআরটিএর প্রশিক্ষণ কেন্দ্র/পরীক্ষা কেন্দ্রে এসে বায়োএনরোলমেন্ট প্রদান ও দক্ষতা যাচাই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। আবেদনকারী তার বিএসপি অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে প্রথমে অনলাইন ভেরিফিকেশন বেজড কিউআর কোড সংবলিত প্রবেশপত্র গ্রহণ করতে হবে। পরে রিফ্রেশার ট্রেনিং ও দক্ষতা যাচাই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পর অনলাইনেই ফি প্রদান ও ডোপ টেস্ট রিপোর্ট স্ক্যান কপি সংযুক্ত করে আবেদন সাবমিট করতে হবে।


এছাড়া আবেদনকারীর পরীক্ষার ফলাফল এবং আবেদন প্রক্রিয়াকরণের প্রতিটি পর্যায়ের স্ট্যাটাস অনলাইনে তার বিএসপি অ্যাকাউন্টে জানতে পারবেন এবং কিউআর কোড বেজড সিস্টেম জেনারেটেড মোটরযান চালনার ই-ড্রাইভিং লাইসেন্স গ্রহণ করতে পারবেন। প্রিন্টিং কার্যক্রম সম্পাদন শেষে আবেদনকারীর চাহিত ঠিকানায় ডাকযোগে ড্রাইভিং লাইসেন্স স্মার্ট কার্ড পৌঁছে দেওয়া হবে।

আরও বলা হয়, সেবাগুলো প্রাপ্তির লক্ষ্যে বিআরটিএর এই লিঙ্কে প্রবেশ করে জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর এবং জন্মতারিখ এন্ট্রিপূর্বক ইউজার আইডি খুলতে হবে। আবেদনকারীর জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যবহার করে মোবাইল নম্বর নিবন্ধন থাকতে হবে।